ঢাকা শুক্রবার, ২রা ডিসেম্বর ২০২২, ১৯শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯

অপরিকল্পিত স্থাপনার চাপ সইতে পারছে না সেন্টমার্টিন


প্রকাশিত:
২ অক্টোবর ২০২২ ২৩:৫৭

আপডেট:
২ ডিসেম্বর ২০২২ ০৯:০৫

 

বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেন বলেছেন, পর্যটনের জন্য কক্সবাজার অন্যতম একটি স্থান, এটিকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা আমাদের সবার দায়িত্ব। তবে একের পর এক অপরিকল্পিত স্থাপনার চাপ সইতে পারছে না দেশের একমাত্র প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিন। এত নিষেধাজ্ঞার পরও সেন্টমার্টিনে এভাবে পাকা ভবন তৈরি কখনোই গ্রহণযোগ্য নয়। যে হারে অপরিকল্পিত স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে তা পর্যটনের সঙ্গে যায় না। এগুলো বন্ধ করার জন্য কাজ চলছে। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় সৈকতের লাবণী পয়েন্টে কক্সবাজারে চলমান পর্যটন মেলায় ‘সেন্টমার্টিনে ইকো ট্যুরিজম :চ্যালেঞ্জ ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পর্যটন সচিব এসব কথা বলেন।

সচিব আরো বলেন, সবকিছু বিবেচনায় রেখে আপাতত টেকনাফ ঘাট থেকে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। কখন নাগাদ টেকনাফ ঘাট থেকে জাহাজ ছাড়বে তা জানানো হবে।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো. আমিন আল পারভেজের সঞ্চালনায় সেমিনারে পর্যটনসচিব মোকাম্মেল আরো বলেন, পর্যটননগরী কক্সবাজারকে নান্দনিকভাবে সাজাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনা রয়েছে। পর্যটন খাতকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে প্রতি বছর পর্যটন মেলা করার ভাবনা আছে। সবকিছু ঠিক থাকলে এ ধরনের মেলা বছরে দুইবারও করতে পারব আমরা। পর্যটনের জন্য কক্সবাজার অন্যতম একটি স্থান। এটিকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা আমাদের সবার দায়িত্ব।

জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদের সভাপতিত্বে সেমিনারে আরো বক্তব্য রাখেন পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুকেশ কুমার সরকার, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, রেস্তোরাঁ মালিক সমিতির সভাপতি নইমুল হক চৌধুরী টুটুল, কক্সবাজার চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের প্রেসিডেন্ট আবু মোরশেদ চৌধুরী প্রমুখ।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষ্যে কক্সবাজারে চলছে সপ্তাহব্যাপী পর্যটন মেলা ও বিচ কার্নিভাল। চলবে ৩ অক্টোবর পর্যন্ত।


বিষয়:



আপনার মূল্যবান মতামত দিন:

Top